ঠোঁট কালো হয়ে যাচ্ছে?

ঠোঁটের ত্বক বেশ নরম ও স্পর্শকাতর। সূর্যের তেজস্ক্রিয় রশ্মি, ধুলা সহজেই ঠোঁটের ত্বকের ক্ষতি করে। শুধু শীতের শুষ্ক আবহাওয়া নয়, সারা বছরই ঠোঁটের চাই বিশেষ যত্ন। গরমের দিনেও নিয়ম করে ঠোঁটে ময়েশ্চারাইজার লাগাতে হবে। গোসল, মুখ ধোয়া ও খাবারের পর এবং অবশ্যই রাতে শোবার আগে ঠোঁটে লিপ বাম লাগাতে হবে।

পানিশূন্যতা থেকেও ঠোঁট কালো হয়ে যেতে পারে। নিয়ম করে প্রতিদিন আট থেকে ১০ গ্লাস পানি পান করুন। অতিরিক্ত চা, কফিসহ অন্যান্য কোমল পানীয় ঠোঁট কালো হওয়ার পেছনে অনেকাংশে দায়ী। দিনে দুবারের বেশি চা-কফি পান না করাই ভালো।

ঠোঁট কালো হওয়ার আরেকটি কারণ হতে পারে ধূমপান। ধূমপানের অভ্যাস থাকলে সতেজ স্বাভাবিক ঠোঁটের আশা বাদ দেওয়াই ভালো। অন্যথায় ধীরে ধীরে ধূমপান ত্যাগ করুন।

সূর্যের আলো ঠোঁট তো বটেই, পুরো শরীরের ত্বকের জন্যই ক্ষতিকর। তাই যতটা সম্ভব সূর্যের আলো এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন। বাইরে চলাফেরার সময় ছাতা ব্যবহার করুন। কমপক্ষে এসপিএফ ১৫ আছে এমন লিপ বাম বেছে নিন।

ঠোঁটের স্বাভাবিক রং বিবর্ণ হতে শুরু করলে প্রথমে এর কারণ খুঁজে বের করে সেটা বাদ দিতে হবে। এরপর নিয়মিত যত্ন নিলে ধীরে ধীরে আবার ঠোঁটের স্বাভাবিক রং ফিরে আসবে।

সপ্তাহে দুবার ঠোঁটে স্ক্রাব ব্যবহার করুন। চিনি ও অলিভ অয়েল একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। গোসলের আগে এই মিশ্রণটি আঙুলের ডগায় নিয়ে ঠোঁট ঘষে ঘষে স্ক্রাব করুন। চিনি গলে গেলে ধুয়ে ফেলুন। এরপর ভেজা ঠোঁটে লিপবাম লাগান।

সপ্তাহে দুই দিন ব্যবহার করুন ভেজষ প্যাক। লেবুর রসের সঙ্গে মধু মিশিয়ে প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে ঠোঁটে লাগান। ১৫ মিনিট পর ধুয়ে লিপবাম লাগান।

লেবুর রসকে বলা হয় ন্যাচারাল ব্লিচ। নিয়মিত লেবুর রসের ব্যবহার ত্বকের কালো দাগ দূর করে।

সপ্তাহে তিন দিন গোলাপের পাপড়ি ও দুধের সর বেটে কয়েক ফোঁটা মধু মিশিয়ে লাগান। নিয়মিত করলে খুব দ্রুত ঠোঁটের হারানো রং ফিরে পাবেন। দীর্ঘদিন ব্যবহার করলে ধীরে ধীরে ঠোঁটে ফুটে উঠবে গোলাপি আভা।

প্রতিবার বাইরে থেকে ফিরে ঠোঁটের প্রসাধন তুলে ফেলতে হবে নিয়ম করে।

অলসতা করে ঠোঁটে লিপস্টিক রেখে ঘুমাতে যাওয়া যাবে না। লিপস্টিক তুলতে এক টুকরা তুলায় অলিভ অয়েল বা বাদাম তেল লাগিয়ে হালকা করে মুছে নিন। তার পর ভালো করে ঠোঁট ধুয়ে পেট্রোলিয়াম জেলি ব্যবহার করুন।

অনেকেই বারবার জিব দিয়ে ঠোঁট ভেজান। এই বাজে অভ্যাসটি ত্যাগ করতে হবে।

নিয়মিত যত্নের পরও ঠোঁটের কালো ভাব না কমলে বিশেষজ্ঞ চিকিত্সকের পরামর্শ নিন। কোনো বিশেষ রোগের কারণেও ঠোঁট কালো হয়ে যেতে পারে।

One thought on “ঠোঁট কালো হয়ে যাচ্ছে?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top