in , , ,

মেয়েদের মন পাওয়ার সবচেয়ে সহজ উপায় জেনে নিন

সুন্দরকে কে না ভালোবাসে। সবাই চায় সুন্দর কিছু একটা যেন তার হোক। নারীদের ক্ষেত্রেও একই। প্রায় পুরুষই চায় তার সঙ্গী দেখতে সুন্দর হোক। সে জন্য ভালো লাগার মানুষের মন জয় করতে কত কিছুই না করে থাকেন তারা। কিন্তু প্রায় দেখা যায় তাদের সেই শ্রম পণ্ড হয়ে যায়। তবে একটু টেকনিক্যাল হলে বিষয়টি সহজ হয়ে যায়।

বলা হয়ে থাকে ‘মেয়েদের মন আর আকাশের রং’ ক্ষণে ক্ষণে বদলায়। কখন যে সে কেমন আচরণ করে তা বলা মুশকিল। আপাতদৃষ্টিতে নারীদের মন পুরোপুরি না বুঝা গেলেও উপায় অবলম্বন করে তাদের মনের মতিগতি নিজের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসা যায়।

নারীদের মন জয় করার জন্য একদল গবেষক কিছু উপায় বের করেছেন।

আসুন জেনে নেয়া যাক নারীদের মন পাওয়ার সহজ উপায় গুলো:

  • ভালবাসার প্রথম শর্ত হল প্রিয় মানুষটার কাছে সৎ থাকা। তার কাছে কোনো কিছুই গোপন করা যাবে না। আত্মবিশ্বাসী হতে হবে। মেয়েরা আত্মবিশ্বাসী ও ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন পুরুষদের পছন্দ করে।
  • নারীরা সব সময়েই প্রশংসা শুনতে চায়। বিশেষ করে কোনো নারী যদি আপনার জন্য সাজে, রাঁধে কিংবা অন্য কিছু করে তাহলে সে আপনার থেকে প্রশংসা আশা করে। তবে আপনার প্রেমিকা কিংবা স্ত্রীর সামনে ভুলেও অন্য নারীর প্রশংসা করবেন না।
  • রূপের প্রশংসা করবেন না। সুন্দরী নারী মাত্রই নিজের রূপের প্রশংসা শুনে অভ্যস্ত। এত বেশি অভ্যস্ত যে ব্যাপারটা তাদের কাছে অনেক সময়ই বিরক্তিকর হয়ে ওঠে। তাই তাদের মনোযোগ পেতে চাইলে প্রথমেই তার সৌন্দর্যের প্রশংসা কড়া বাদ দিন। এই ব্যাপারটি তিনি অবশ্যই লক্ষ্য করবেন এবং জানতে আগ্রহী হবেন যে আপনি সবার মত তার রূপের প্রশংসা কেন করছেন না!
  • আপনার সঙ্গে যখন সে কথা বলছে তার কথা মন দিয়ে শুনুন। কারও মনে জায়গা পাওয়ার সেরা উপায় হল ভাল শ্রোতা হওয়া। কথা শুনে প্রয়োজন হলে প্রশ্ন করুন। ভাল লাগলে প্রশংসা করুন। পুরো কথাটা শুনে তারপর মন্তব্য করুন।
  • মেয়েরা হাস্য-রস পছন্দ করে। যেসব ছেলেরা তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাসি তামাশা করতে পারে, মেয়েরা ওইসব ছেলেদের পছন্দ করে।
  • মেয়েরা পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা ও ফিটফাট থাকতে পছন্দ করে। মেয়েরা চায় তার ভালোবাসার মানুষটি সব সময় কেতাদুরস্ত থাকুক।
  • আর্থিক সচ্ছলতা প্রদর্শন করুন। সুন্দরীরা মনে করেন একজন ধনী পুরুষ পাবার সমস্ত যোগ্যতাই তাদের আছে। ধনী না হলে খুব কম ক্ষেত্রেই সুন্দরীদের নজরে পড়া যায়।
  • তাদের প্রতি অতি আগ্রহ প্রকাশ করবেন না। আগ বাড়িয়ে কিছুই করতে যাবেন না।
  • প্রিয়তমাকে তার দুর্বলতার কথা তুলে রাগানো যাবে না। মনে রাখবেন প্রত্যেক নারী তার প্রিয়জনের কাছ থেকে সর্বোচ্চ ভালবাসা পেতে চায়। নারী চায় তার প্রিয় মানুষ তার প্রতি যত্নবান হোক।

সবাই ভুল করে। আপনিও ব্যতিক্রম নন। তবে অতীতের ভুলগুলো পুনরায় করবেন না। এই ভুলগুলো থেকে শিক্ষা নিয়ে সম্পর্ককে সাজানোর চেষ্টা করুন। দেখবেন, সত্যিকারের ভালোবাসা আপনার কাছে ঠিকই ধরা দেবে।

আপনার কথা বলা, আচরণ, দৃষ্টি, বিশ্বাস আপনাকে আলাদা করতে পারে আরেকজনের কাছে। যদি আপনার ভালোবাসার মানুষের কাছে অপশন ও থাকে তাহলে আপনার পজিটিভ অ্যপ্রোচ আপনাকে জয়ী করে দিতে পারে সহজেই।

কারণ, সব মেয়েই চায় ডিফারেন্ট কোন কিছু। আর ভালবাসা হওয়ার পর, তাকে আগের মতই ট্রিট করবেন, সম্মান দিবেন, ভালোবাসার রূপ বদলাবেন যেন ভালোবাসা পুরনো ও একঘেয়ে না হয়ে যায় কখনো। আর একটা স্বপ্ন বুনে দেওয়ার চেষ্টা করবেন, যেই স্বপ্ন কে সাথী করে আপনার সাথে থাকবে সর্বদা আপনার ভালোবাসার মানুষটি‌।

Leave a Reply

শুক্রবার সুরা কাহাফ তিলাওয়াতের ফজিলত

চিকিৎসাবিজ্ঞানে মুসলমানদের অবদান