in

ব্লুটুথ দিয়ে আপনার তথ্য চুরি করছে না তো হ্যাকাররা?

আপনার স্মার্টফোন বা ল্যাপটপে ‘ব্লুটুথ’ অপশনটি প্রয়োজন না থাকলে বন্ধ রাখুন। সব সময় ব্লুটুথ চালু রাখলে আপনার ডিভাইসটি হ্যাক হয়ে যেতে পারে।

যারা সব সময় স্মার্টফোন বা ল্যাপটপে ব্লুটুথ চালু রাখেন, তাদের সে অভ্যাস বাদ দিতে হবে। কারণ ব্লুটুথ প্রটোকলে এক ধরনের নিরাপত্তা ত্রুটি পাওয়া গেছে, যা সাইবার দুর্বৃত্তরা কাজে লাগিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হাতিয়ে নিতে পারে বা ডিভাইস হ্যাক করে সর্বনাশ ঘটাতে পারে।

সম্প্রতি উইলাইভ সিকিউরিটি ডটকমের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ব্লুটুথ ওয়্যারলেস যোগাযোগ প্রোটোকলে একটি নতুন দুর্বলতা উন্মোচন করা গেছে যা স্মার্টফোন, ল্যাপটপ এবং স্মার্ট-হোম ডিভাইসগুলোর মতো বিভিন্ন ডিভাইসে ছদ্মবেশী আক্রমণ ব্লুটুথ ইমপারসোনেশন অ্যাটাকস চালায়। আগে যেসব ডিভাইসে ব্লুটুথ দিয়ে দূরে ‘পেয়ার’ করা হয়েছিল, সাইবার অপরাধীরা ব্লুটুথের দুর্বলতা কাজে লাগিয়ে সেই ডিভাইসের ছদ্মবেশ নিতে পারে।

বর্তমানে যেসব ব্লুটুথ ডিভাইসে ব্লুটুথ বেসিক রেটা বা এনহ্যান্ডসড ডেটা রেট কোর কনফিগারেশন ৫.২ বা তার ওপরের সংস্করণ সমর্থন করে, সেগুলো ঝুঁকিপূর্ণ। সাধারণত দুটি ডিভাইসে এনক্রিপটেড সংযোগ স্থাপনে একটি লিংক কি ব্যবহার করে ‘পেয়ার’ করতে হয়।

এ ধরনের হামলা থেকে রক্ষা পেতে হালনাগাদ ব্লুটুথ কনফিগারেশন থাকতে হবে। অন্যথায় ডিভাইস নির্মাতাদের ফার্মওয়্যার হালনাগাদ পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকতে হবে। যত দিন ফার্মওয়্যার হালনাগাদ না হচ্ছে, সুরক্ষার জন্য অন্য ডিভাইসে পেয়ার করার প্রয়োজন ছাড়া ব্লুটুথ অপশন বন্ধ রাখতে হবে।

Leave a Reply

সর্দি-কাশি সারাতে ঔষধ খাওয়ার প্রয়োজন নেই!

নিয়মিত ঘি খেলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে